কিভাবে বুঝবেন আপনি ডায়াবেটিক আক্রান্ত হতে চলেছেন?

0
117

ডেইলি২৪বিডি

বর্তমান সময়ে ডায়াবেটিকস একটি অতি পরিচিত রোগ। এ রোগে আক্রান্তের পরিমান আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে প্রতিনিয়তই। অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাত্রা, অনিয়ন্ত্রিত খাদ্যাভ্যাস এবং অনিয়মিত শরীরচর্চা ডায়াবেটিক প্রবণতা বাড়িয়ে চলেছে। অথচ, আমরা একটু সাবধান হলেই এ রোগ এড়িয়ে চলা সম্ভব।

ডায়াবেটিক আক্রান্ত হওয়ার আগে শরীরে কিছু লক্ষণ দেখা দেয়। সেসব দেখে সাবধান হলে অনেক ক্ষেত্রে এই রোগের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব।

গবেষণা করে চিকিৎসকরা বের করেছেন রক্তে শর্করার মাত্রা বেড়ে যাওয়ার ফলে দেহে কি কি ধরণের উপসর্গ দেখা দিতে পারে। চলুন সেগুলো জেনে নিই-

১. ঘন ঘন প্রশ্রাব: স্বাভাবিক ভাবে আমরা যে কয়বার পশ্রাব করে থাকি রক্তে শর্করার পরিমান বেড়ে গেলে পশ্রাবের মাত্রা দুইগুণ বা তিনগুণ পর্যন্ত বেড়ে যেতে পারে। এমন হলে অবশ্যই ব্লাডসুগার পরীক্ষা করে রক্তে শর্করা বাড়ছে কিনা দেখে নিন।

২. আঙ্গুল অবশ হওয়া: হাত কিংবা পায়ের আঙ্গুল অবশ হয়ে যাওয়া রক্তে শর্করা বাড়ার একটি লক্ষণ। ধীরে ধীরে পুরো হাত বা পা অবশ হয়ে যেতে পারে।

৩. অতিরিক্ত প্রশ্রাব: রক্তে শর্করা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে কিডনী তার নিজস্ব কর্মক্ষমতা হারাতে শুরু করে। এর ফলে দেহের প্রয়োজনীয় পানিও ধরে রাখতে পারেনা কিডনী। যার ফলে স্বাভাবিকের চেয়ে দ্বীগুণ পানীয় একসঙ্গে পশ্রাব আকারে বের হয়ে আসে।

৪.ঘন ঘন গলা শুকিয়ে যাওয়া: শরীরের স্বাভাবিক কার্যক্রম চলমান রাখতে প্রয়োজনীয় নির্ধারিত পরিমানের প্রয়োজনীয় পানিও কিডনী ধরে রাখতে না পারায় ঘন ঘন গলা শুকানো শুরু হয়।

৫.কাঁটা-ছেড়া না শুকানো: শরীরের কোন জায়গা কেঁটে গেলে অনেক দিন ধরে তা না শুকালে ধরে নিতে হবে রক্তে শর্করা মাত্রাতিরিক্ত বাড়ছে।

৬.দৃষ্টিশক্তি কমতে থাকা: রক্তে শর্করা বাড়তে থাকলে দৃষ্টিশক্তির উপর তার প্রভাব পড়ে। তাই হঠাৎ করে চোখে কম দেখতে শুরু করলে চোখ পরীক্ষার সঙ্গে সঙ্গে ব্লাডসুগারও দেখে নিতে হবে।

৭.সহজেই ক্লান্ত হয়ে পড়া: রক্তে শর্করার পরিমান বাড়তে থাকলে একজন ব্যাক্তি যে কোন কাজে সহজেই হাঁপিয়ে ওঠবে, ক্লান্ত হয়ে যাবে। তার ষ্ট্যামিনা লোপ পায়।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here