ইউনিক ইষ্টার্ণ সহ ১০ টি ম্যানপাওয়ার কোম্পানীকে শো-কজ করবে সরকার

0
159
ইউনিক ইষ্টার্ণ সহ ১০ টি ম্যানপাওয়ার কোম্পানীকে শো-কজ করবে সরকার

ডেইলি২৪বিডি-

ঢাকাঃ সিন্ডিকেটের মাধ্যমে মালয়েশিয়া শ্রম বাজার একচেটিয়া বাজার নিয়ন্ত্রণ করে অনৈতিক ব্যবসা পরিচালনার অভিযোগে দোষী রিক্রুটিং এজেন্সিগুলোকে শোকজ করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি।

আজ মঙ্গলবার সচিবালয়ে তার দপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন মন্ত্রী।

কুয়ালালামপুরে বাংলাদেশ দূতাবাস সূত্রে জানা গেছে গত ১৪ আগস্ট মালয়েশিয়ান পার্লামেন্টে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ড মাহাথির মোহাম্মদের সভাপতিত্বে বিভিন্ন দেশের শ্রমিক নিয়োগ এবং ব্যবস্থাপনা বিষয়ক বিশেষ কমিটির একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় ওই বৈঠকে আগামী সেপ্টেম্বর থেকে বাংলাদেশের শ্রমিক নিয়োগ বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়েছে।

বাংলাদেশের ১০ টি ম্যানপাওয়ার রিক্রুটিং এজেন্সি এবং মালয়েশিয়ান একটি প্রভাবশালী চক্র মিলে “জিটুজি প্লাস” নামের একটি চুক্তিতে বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় শ্রমশক্তি রপ্তানির ব্যাবসাটি অনৈতিকভাবে করে আসছিল। আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে সে চুক্তিও বাতিল করা হচ্ছে।। মালয়েশিয়ার বাজারে বাংলাদেশের শ্রমশক্তি রপ্তানিকারী সিন্ডিকেটের ওই ১০ টি প্রতিষ্ঠান হল ইউনিক ইষ্টার্ন, ক্যারিয়ার ওভারসিজ, ক্যাথারসিস ইন্টাঃ, এইচএসএমটি হিউম্যান রিসোর্স, রাব্বি ইন্টারন্যাশানাল, সানজারি ইন্টারন্যাশানাল। প্যাসেজ অ্যাসোসিয়েটস, আমিন ট্যুরস এন্ড ট্রাভেলস, প্রান্তিক ট্রাভেলস এবং আল ইসলাম ওভারসিজ।

মন্ত্রী জানান, “অভিযুক্ত ১০ টি কোম্পানীকে শো-কজ করা হবে এবং ব্যাখ্যা চাওয়া হবে।” এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “এই ১০টি এজেন্সিকে আমরা নিয়োগ দেইনি বা নিয়ন্ত্রন করিনা। মালয়েশিয়ার সরকার নিয়োগ দিয়েছিল ওই এজেন্সিগুলোকে। এই ১০ জনের বিরুদ্ধে আমি সবসময় ছিলাম এখনও আছি। আমি সিন্ডিকেট বিশ্বাস করিনা”। মালয়েশিয়ান শ্রমবাজার বন্ধ হয়ে যাওয়ার খবর নিশ্চিত করেন তিনি। এবং অচিরেই পদ্ধতিগত পরিবর্তন করে মালয়েশিয়া পুণঃরায় তাদের শ্রমবাজার খুলে দিবে বলে জানান তিনি। জিটুজি প্লাস চুক্তি বন্ধ হলেও যে ২৫/৩০ হাজার কর্মীর প্রাথমিক নিয়োগ প্রক্রিয়া ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে তারা মালয়েশিয়ায় যেতে পারবেন বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী।

 

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here