নষ্টদের একটি বড় চারিত্রিক বৈশিষ্ট হলো, তারা কোনো কিছু সৃষ্টি করতে পারে না

0
1285

জসিম ভূঁইয়া

ডেইলি২৪বিডি-

ঢাকাঃ অসুর,ধ্বংসকারী,অমার্জিত,অসংস্কৃত,লোভী,ভোগী, শাস্তিদাতা,নির্মম,হিতাহিত জ্ঞানশূন্য,বটে। প্রতিহিংসাপরায়ণ,বিকৃত রুচির। তারা যা কিছু স্পর্শ করে তা-ই অসুন্দর হয়ে যায়।

তারা যা কিছুর দিকে লোলুপ দৃষ্টি ছুঁড়ে মারে সে-সব কিছুই পুড়ে পুড়ে অঙ্গার হয়ে যায়।আজ যদি আমরা সমাজের দিকে তাকাই তাহলে এসব চিত্রই অবলোকন করে দেখাযায়।

প্রেমিকার বক্ষে প্রেমিকের জন্য আজ এতটুকু ভালোবাসা অবশিষ্ট নেই কিশোরীর চোখে নেই স্বপ্নময় ভীরুতা।নারীর স্পর্শে নেই আরণ্যক ঋষিদের আবিষ্কৃত সেই মায়ার জাদু। নষ্টদের দানবিক থাবায় রমণীর সবটুকু রমণীয়তাই আজ চোরা পথে নিঃশেষিত।

পৃথিবীর অপার সৌন্দর্যরাশি পাপিষ্ঠদের পাপে জীর্ণ হয়ে গেছে। তবু দূরবর্তী দুর্গম হৃদয়ে অবশিষ্ট ছিল কিছু সামান্য আলোক। সেই সামান্য মহিমাও আজ আক্রান্ত হচ্ছে নষ্টদের রাবণীয় আগ্রাসনে।

এভাবে সব কিছু যদি একদিন নষ্টদের শোষকপ্রাসাদে বন্দী হয়ে পড়ে। কি-ভাবে টিকে থাকবে আমাদের পৃথিবী?স্বপ্নকে সম্বল করে বেঁচে থাকবে-কিভাবে এখানে বাস করবে,মানুষ।

ভবিষ্যৎবাণীতে -গুনি ব্যক্তিরা বলেছেন কিছু অসহায় নারী,ক্রমে ক্রমে বন্দী হয়ে পড়বে নষ্টের… উরুসন্ধিতে,প্রেমিকারা প্রেমিকের নিখাদ প্রেম প্রত্যাখান করে সামান্য সুখ আর সচ্ছলতার লোভে,নষ্ট হবে জীবন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here