সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যেমে আসক্ত তরুন ক্রিকেটাররা: পাইলট

0
168
খালেদ মাসুদ পাইলট-ফাইল ছবি

মেহিদী হাসান বাপ্পি

ডেইলি২৪বিডি-

কয়েকদিন আগে শেষ হওয়া ক্যারিয়ান সফরে ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টি সিরিজে বাংলাদেশ জয় পেলেও তরুণ ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্স হতাশ করেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর শেষে তরুণ ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্স নিয়ে প্রশ্ন উঠছে ক্রিকেট বিশ্লেষকদের মাঝে।

বাংলাদেশ দলের তরুণক্রিকেটাররা ক্যারিবীয় সফরে প্রত্যাশিত ব্যাটিং করতে ব্যর্থ হয়। সফরে তিন ফরম্যাট মিলিয়ে দলের মোট রানের ৭১ শতাংশই এসেছে চার সিনিয়র ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল, সাকিব আল হাসান, মুশফিকুর রহিম ও মাহমুদউল্লাহর ব্যাট থেকে।

ওয়ানডে সিরিজে দলের দুই সেঞ্চুরির দুটিই ওপেনার তামিমের। এছাড়া ১০ ফিফটির আটটিই করেছেন দলের ভরসাস্থল চার সিনিয়রের। বিপরীতে দলের সবচেয়ে সম্ভাবনাময় আট তরুণ ব্যাটসম্যানের সম্মিলিত অবদান ২৯ ইনিংসে ৩৬৯ রান। লিটন দাস, এনামুল হক, সৌম্য সরকার, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন, মুমিনুল হক, আরিফুল হক ও নুরুল হাসান মিলে তিন ফরম্যাটে করেছেন মোটে দুটি ফিফটি। জাতীয় দলের তরুণ ক্রিকেটের আত্মনিবেদনে ঘাটতি দেখছেন ঘরোয়া ক্রিকেটের সফল কোচ ও জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক খালেদ মাসুদ পাইলট।

সাবেক এ অধিনায়ক বলেন, ‘দলের সব সিনিয়র ক্রিকেটারই নিজেদের পারফরম্যান্সের প্রতি অবিশ্বাস্য মনোযোগী ও পরিশ্রমী।অনুশীলন এ সবার আগে তামিম, মুশফিকুর, মাশরাফি বা মাহমুদউল্লাহকে ই দেখা যায়। নেট বা জিম থেকে তাদের সরানো যায় না। কিন্তু তরুণ ক্রিকেটারদের নিয়ে আমি এমনটা বলতে পারছি না।’ এখনকার তরুণ ক্রিকেটাররা মাঠে অনুশীলন না করে ফেসবুক ও নানারকম সামাজিক যোগাযোগ নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েন।

পাইলট বলেন, ‘তরুণ ক্রিকেটারদের আরেকটা বড় সমস্যা হয়ে উঠেছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে আসক্তি। কেন তারা সবসময় ফেসবুকে পড়ে থাকবে? এ থেকে অবশ্যই বেরিয়ে আসতে হবে বলে পরামর্শ দেন এই সাবেক ক্রিকেটার।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here